Husband and wife’s life is varied, the marriage with the variety of colors. Here we shared a collection of Husband and Wife Jokes in Bengali Marriage. If you like it, please share the page on Facebook and WhatsApp.

Bengali Husband and Wife Jokes

স্ত্রী: কখনো ভেবে দেখেছ, আমি একদিন মরে যাব।
স্বামী: না না! তুমি মরে গেলে আমিও যে মারা যাব !
স্ত্রী: কিন্তু কেন?
স্বামী: কারণ এত আনন্দ আমি সহ্য করতে পারব না!


মার্কেটে কেনাকাটার সময় এক ভদ্রমহিলাকে বলছেন এক লোক, ‘এই যে শুনুন।’
ভদ্রমহিলা: বলুন
লোক: এখানে এসে আমি আমার স্ত্রীকে হারিয়ে ফেলেছি। আমি কি আপনার সঙ্গে কিছুক্ষণ কথা বলতে পারি?
ভদ্রমহিলা: স্ত্রীকে হারিয়ে ফেলেছেন তো আমার সঙ্গে কথা বলতে চাইছেন কেন?
লোক: না মানে…আমি লক্ষ করেছি, যখনই আমি কোনো অপরিচিত নারীর সঙ্গে কথা বলতে নিই, তখনই কোথা থেকে যেন আমার স্ত্রী এসে হাজির হয়!


স্বামী প্রতিদিন অনেক রাত করে বাসায় ফেরেন। এই নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া।
স্বামী (মোবাইলে): আজ রাতের খাবার কী?
স্ত্রী (রেগে): বিষ আছে! বিষ!
স্বামী: ঠিক আছে, তুমি খেয়ে শুয়ে পড়ো। আমার ফিরতে আরও দেরি হবে।


স্বামী আর স্ত্রীর মধ্যে প্রচন্ড ঝগড়া। মুখ দেখা, কথা বন্ধ। রাতে শুতে যাওয়ার সময় স্বামীর মনে পড়ল পরের দিন ভোরবেলা ফ্লাইট। এদিকে স্বামী বেচারা সকালে উঠতে পারে না। সাত-পাঁচ ভেবে সে একটি কাগজে লিখল…
“কাল সকাল চারটার সময় ডেকে দিও” কাগজটা স্ত্রীর বালিশের কোণায় চাপা দিয়ে স্বামী নিশ্চিন্তে ঘুমিয়ে পড়ল।
পরের দিন সকালে সাড়ে আটটার সময় স্বামীর ঘুম ভাংল। সময় দেখে তার তো চক্ষু চড়কগাছ।
রেগেমেগে চিৎকার করে স্ত্রীকে ডাকতে গিয়ে তার নজরে পড়ল বালিশের পাশে একটা চিরকুট। খুলে দেখল লেখা আছে… “চারটে বেজে গেছে, উঠে পড়ো।”


স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ফোনে কথা হচ্ছে।
স্ত্রী: (ধমকের স্বরে) কোথায় তুমি?
স্বামী: প্রিয়তমা, তোমার কি সেই জুয়েলারির দোকানটার কথা মনে আছে, যে দোকানের একটা গয়নার সেট তুমি পছন্দ করেছিলে এবং বলছিলে, ‘ইশ্! যদি এটা কিনতে পারতাম?’
স্ত্রী: (গদগদ স্বরে) হ্যাঁ প্রিয়তম, মনে আছে!
স্বামী: আমি সেই জুয়েলারির দোকানের ঠিক পাশের দোকানে বসে চা খাচ্ছি।


স্বামীঃ “দুবাই যাচ্ছি।
স্ত্রীঃ “আমার জন্য স্বর্ণের অলংকার নিয়ে এসো।
স্বামীঃ “আমেরিকা যাচ্ছি।
স্ত্রীঃ “আমার জন্য মেকআপ বক্স নিয়ে এসো।
. . স্বামীঃ “প্যারিস যাচ্ছি।
স্ত্রীঃ ” আমার জন্য পারফিউম নিয়ে এসো।
. . স্বামীঃ “জাহান্নামে যাচ্ছি।
স্ত্রীঃ “আমার জন্য চিন্তা করো না। তুমি নিজের খেয়াল রাইখো।


মাটিতে ধপ করে কিছু পড়ার শব্দ হতেই বল্টুর বউ ছুটে এল।
স্ত্রী : কী গো কিসের শব্দ হলো ।
বল্টু : খাট থেকে আমার জামাপ্যান্ট পড়ে গিয়েছিল ।
স্ত্রী : কিন্তু জামা-প্যান্ট পড়লে এত জোরে তো শব্দ হওযার কথা না ।
বল্টু : আসলে জামা-প্যান্টএর ভিতরে আমিও ছিলাম।


বিল্টু গ্রামে তার মায়ের কাছে ফোন করেছে…
বিল্টুঃ মা, একটা সুখবর আছে।
মাঃ বলিস কি! তাড়াতাড়ি বলে ফেল।
বিল্টুঃ এখন থেকে আমরা দুই জন থেকে তিন জন হয়ে গেছি, মা।
মাঃ এই সুখবরটা এত দেরিতে বললি কেন? তা ছেলে না মেয়ে হয়েছে রে?
বিল্টুঃ ওসব কিছু না। আমার বউ আরেকটি বিয়ে করে ফেলেছে, মা!


বলুন তো মেয়েরা বিয়ের সময় শ্বশুর বাড়িতে লাল শারি পরে কেন যায়?
.
.
.
. . মেয়েদের লাল শারি পরার কারন হচ্ছে। ঘরে ঢুকতে রেড সিগনাল দিয়ে তাদের ভয়াবহত… !


বল্টু তার বউ- কে কুমিল্লা থেকে ফোন করল.ফোনটা এক চাকর ধরল- চাকর : হ্যালো।
বল্টু : ম্যাম সাহেবকে ফোনটা দে।
চাকর : কিন্তু ম্যাম সাহেব তো সাহেবের সাথে বেড রুমে ঘুমাচ্ছে।
বল্টু : মানে?? সাহেব তো আমি ।
চাকর : আমি এখন কি করব??
বল্টু : দুইজনকে-ই গুলি করে মেরে ফেল ৫ লাখটাকা দিব।
চাকর দুইজন- কে গুলি করে মারার পর,
চাকর : সাহেব, লাশ ২টা এখন কি করব??
বল্টু : লাশ ২টা বাড়ির পিছনের swimming pool এ ফেলে দে।
চাকর : কিন্তু সাহেব, বাড়ির পিছনেতো কোন swimming pool নেই.
বল্টু : নেই??? ওহ sorry
তাহলে wrong number!!!


স্ত্রী: ওগো শুনছ, আমার কিছু জিনিস প্রয়োজন।
স্বামী: কী?
স্ত্রী: ছেলেমেয়ে আর আমার জন্য পাঁচ সেট জামা। বিছানার চাদর, কিছু নতুন চেয়ার, একটা ফ্রিজ, একটা এলসিডি টিভি, ছেলের জন্য একটা মোবাইল, মেয়ের জন্য গয়না..
স্বামী: সে ক্ষেত্রে আমারও কিছু জিনিস প্রয়োজন।
স্ত্রী: কী?
স্বামী: একটা বন্দুক, একটা মুখোশ আর শহরের একটা ব্যাংকের পুরো নকশা.


স্বামী এবং স্ত্রী খুব ঝগড়া করছে। এমন সময় স্ত্রী স্বামীকে রেগে-মেগে গিয়ে বলছে
… … … “তুমি শুধু আমার বাড়ি, আমার টিভি, আমার ফ্রিজ, আমার সন্তান বল কেন???”
তুমি বলতে পারো না যে, “আমাদের বাড়ি, আমাদের টিভি, আমাদের ফ্রিজ, আমাদের সন্তান … ”
ঠিক তখনই স্বামী কি যেন খুঁজছিল। তাই দেখে স্ত্রী জিজ্ঞাসা করলো- কি খুজছো?
স্বামী তখন আমতা আমতা করে বলল- “ইয়ে মানে আমাদের শেভিং রেজারটা … “


বন্ধুর বাড়িতে বেড়াতে গেছেন শাকিল। গিয়ে দেখেন বন্ধুর স্ত্রী কাঁদছেন।
শাকিল: কিরে, তোর বউ কাঁদছে কেন?
বন্ধু: জানি না। জিজ্ঞেস করিনি।
শাকিল: ওমা! জিজ্ঞেস করিসনি কেন?
বন্ধু: আগে যতবার জিজ্ঞেস করিছি, প্রতিবারই আমাকে ফতুর হতে হয়েছে!


স্বামীঃ এই ড্রাইভারকে আজই বিদায় করে দেব। বেপরোয়া গাড়ি চালায়। ছয়-ছয় বার নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পেয়েছি আমি। আজ ও আমাকে প্রায় মেরেই ফেলেছিল।
স্ত্রীঃ না,, না, লক্ষীটি। ওকে বিদায় কোরো না। আর একটা সুযোগ অন্তত দাও তাকে।


স্ত্রী: আমার সাথে ১০ বছর সময় কাটানো তোমার কাছে কি?
স্বামী: আরে সে ১ সেকেন্ড মনে হয়। চোখের পলকে কেটে গেল প্রিয়ে…
স্ত্রী: (খুশি হয়ে) আমার জন্য ১০,০০০ টাকা তোমার জন্য কি?
স্বামী: আরে সেত ১ টাকার মত। কোন ব্যাপারই না।
স্ত্রী: (ততধিক খুশি হয়ে)তা জানু আমাকে ১০,০০০ টাকা দিতে পারবে এখন?
স্বামী: (গম্ভির হয়ে) দাড়াও এক সেকেন্ড পরে দেই।


স্বামী স্ত্রী এর খুনসুটি এর জোকস

একবার এক বিখ্যাত বক্তা তার ভাষণে বললেন, “আমার জীবনের সেরা সময় এক মহিলার সাথে কেটেছে। কিন্তু সে আমার স্ত্রী নয়। সকল শ্রোতা শুনে চমকে উঠে চুপ হয়ে গেলো।
এরপর বক্তা যোগ করলেন, “তিনি আমার মা” । সবাই হেসে উঠে হাততালি দিয়ে উঠলো। হাবলুও সেখানে ছিল, এবং সে খুবই অভিভূত হল। ঠিক করলো সেও এটা বাড়িতে গিয়ে বলবে। সে বাড়িতে গিয়ে কিচেনে স্ত্রীকে গিয়ে জোরে বলল, “আমার জীবনের সেরা সময় এক … মহিলার সাথে কেটেছে,
কিন্তু সে আমার স্ত্রী নয়” এরপরে সে একটু চুপ থাকলো আরবাকি অংশ মনে করার চেষ্টা করলো কিন্তু সে পারলো না মনে করতে যখন তার জ্ঞান ফিরল দেখল সে হাসপাতালে, ফুটন্ত পানিতে পোড়া আঘাতের চিকিৎসা করা হচ্ছে।


স্ত্রী মৃত্যুশয্যায়। পাশে স্বামী-
স্ত্রীঃ ওগো কথা দাও আমি মারা গেলে তুমি আর বিয়ে করবে না?
স্বামীঃ দু মিনিট সময় দাও।
স্ত্রীঃ দু মিনিট কেন?
স্বামীঃ পলির সাথে একটু আলোচনা করে নেই।


স্ত্রী:তুমি আমাকে কতটুকু ভালোবাসো ?
স্বামী: আমি তোমাকে বাম ভালবাসি, কখনও তোমাকে বুলতে পারবনা ।
স্ত্রী: তুমি আমাকে কেমন ভালোবাসো একটো খুলে বলনা
স্বামী: okey, যেমন ধরো আমি হোলাম মোবাইল আর তুমি সিম কার্ড সিম কার্ড ছাড়া মোবাইল যেমন
তোমাই ছাড়া আমি তেমন।
স্ত্রী: woow,, দারুন রোমান্টিক ,,
স্বামী: (মনে মনে) আল্লাহ বাচাইছে সে বুজতে পারেনি আমি একটা চাইনা মোবাইল আর এর ভিতরে চারটা সিম ঢুকানু আছে।


১ম বন্ধু : বউয়ের সাথে ঝগড়ার কি হল?
২য় বন্ধু : ও আমার কাছে মাথা নিচুকরে আসলো।
১ম বন্ধু : মাথা নিচু করে??তাই নাকি?জোস তো।
২য় বন্ধু : তাছাড়া আর কি…
১ম বন্ধু : কি বলল এসে?
২য় বন্ধু : খাটের নিচ থেকে বের হোউ. এখন মারবো না।


স্বামী স্ত্রীকে জিজ্ঞেস করল, বিয়ের আগে তুমি কি কারও সঙ্গে প্রেম করেছ?
স্ত্রী বলল, হ্যাঁ।
স্বামী রেগে বলল, তাহলে ওই হতচ্ছাড়ার নাম বলো। এক্ষুনি গিয়ে দাঁত ভেঙে দিয়ে আসি।
স্ত্রী বলল, ওগো, তুমি একা কি তাদের সবার সঙ্গে পারবে?


Bengali Husband and Wife Jokes